ঢাকা ০৬:০৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সোমালিয়ার জলদস্যুদের কবলে বাংলাদেশি জাহাজ: মজুদ আছে ২৫ দিনের মতো খাবার

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০১:৩১:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪ ২২ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি :

সোমালি জলদস্যুদের হাতে আটক বাংলাদেশি এমভি আবদুল্লাহ জাহাজে ২৫ দিনের মতো খাবার রয়েছে। এ ছাড়া জাহাজটিতে রয়েছে ২০০ টন বিশুদ্ধ পানি।

জলদস্যুরা জাহাজটি নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পর মঙ্গলবার (১২ মার্চ) জাহাজটির প্রধান কর্মকর্তা মো. আতিকউল্লাহ খান এক বার্তায় এ তথ্য জানান।

আতিকউল্লাহ খান এক অডিও বার্তায় বলেন, আমাদের জাহাজে ২০-২৫ দিনের সরবরাহ রয়েছে। ২০০ টন পানযোগ্য পানি আছে। আর জাহাজে রয়েছে ৫৫ হাজার টন কয়লা। রসদ যাতে দ্রুত ফুরিয়ে না যায়, সে জন্য অপ্রয়োজনে ব্যবহার না করার জন্য সবাইকে জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় দুপুর দেড়টায় মোজাম্বিকের মাপুতো বন্দর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাওয়ার পথে সোমালিয়ার জলদস্যুরা জাহাজটির নিয়ন্ত্রণ নেয়। জাহাজটিতে ৫৫ হাজার টন কয়লা রয়েছে। জাহাজে থাকা ২৩ জন নাবিকের সবাই বাংলাদেশি। জাহাজটির মালিক চট্টগ্রামের কবির গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এসআর শিপিং লিমিটেড।

জাহাজের মালিকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জাহাজটি নিয়ন্ত্রণে নেওয়া কবির গ্রুপের কর্মকর্তাদের সঙ্গে এখনো জলদস্যুরা যোগাযোগ করেনি। এ হিসেবে মুক্তি পাওয়ার আগ পর্যন্ত এই খাবার দিয়ে চলতে হবে জাহাজের নাবিক ও দস্যুদের।

সোমালিয়ার জলদস্যুদের কবলে বাংলাদেশি জাহাজ: মজুদ আছে ২৫ দিনের মতো খাবার

আপডেট সময় : ০১:৩১:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪

নিজস্ব প্রতিনিধি :

সোমালি জলদস্যুদের হাতে আটক বাংলাদেশি এমভি আবদুল্লাহ জাহাজে ২৫ দিনের মতো খাবার রয়েছে। এ ছাড়া জাহাজটিতে রয়েছে ২০০ টন বিশুদ্ধ পানি।

জলদস্যুরা জাহাজটি নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পর মঙ্গলবার (১২ মার্চ) জাহাজটির প্রধান কর্মকর্তা মো. আতিকউল্লাহ খান এক বার্তায় এ তথ্য জানান।

আতিকউল্লাহ খান এক অডিও বার্তায় বলেন, আমাদের জাহাজে ২০-২৫ দিনের সরবরাহ রয়েছে। ২০০ টন পানযোগ্য পানি আছে। আর জাহাজে রয়েছে ৫৫ হাজার টন কয়লা। রসদ যাতে দ্রুত ফুরিয়ে না যায়, সে জন্য অপ্রয়োজনে ব্যবহার না করার জন্য সবাইকে জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় দুপুর দেড়টায় মোজাম্বিকের মাপুতো বন্দর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাওয়ার পথে সোমালিয়ার জলদস্যুরা জাহাজটির নিয়ন্ত্রণ নেয়। জাহাজটিতে ৫৫ হাজার টন কয়লা রয়েছে। জাহাজে থাকা ২৩ জন নাবিকের সবাই বাংলাদেশি। জাহাজটির মালিক চট্টগ্রামের কবির গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এসআর শিপিং লিমিটেড।

জাহাজের মালিকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জাহাজটি নিয়ন্ত্রণে নেওয়া কবির গ্রুপের কর্মকর্তাদের সঙ্গে এখনো জলদস্যুরা যোগাযোগ করেনি। এ হিসেবে মুক্তি পাওয়ার আগ পর্যন্ত এই খাবার দিয়ে চলতে হবে জাহাজের নাবিক ও দস্যুদের।