ঢাকা ০৫:৪৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শ্বাসকষ্টে জবি শিক্ষার্থীর অকাল মৃত্যু

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৪:৪৩:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ এপ্রিল ২০২৩ ৯ বার পঠিত

সাকিবুল ইসলাম, জবি প্রতিনিধি:
খিঁচুনি ও শ্বাসকষ্টে অজ্ঞানরত অবস্থায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। ওই শিক্ষার্থীর নাম মো. রাজু আহমেদ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থী।
শনিবার রাত ৮টার দিকে পুরান ঢাকার নারিন্দার একটি মেস থেকে অচেতন অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। রাজুর সহপাঠীরা ও বিভাগের শিক্ষার্থীও তার মৃত্যুর বিষয়টি জানিয়েছেন।
মৃত রাজুর রুমমেট মো. শরিয়তুল্লাহ জানান, তারা নারিন্দা কাঁচাবাজার চিনি টুকরা মসজিদের পাশে একটি বাড়ির ৫ম তলায় মেসে থাকেন। ঈদের ছুটি কাটিয়ে শনিবার বিকেলে গ্রাম থেকে ঢাকায় আসেন রাজু। মেসে এসে গরুর মাংস দিয়ে ভাত খেয়ে নিজের রুমে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে রাজু হঠাৎ অচেতন হয়ে পড়েন। দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন, ‘আমি মৃত্যুর বিষয়টি শুনেছি৷পরিবারের সাথে যোগাযোগ করে লাশ বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।’
ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মো. বাচ্চু মিয়া জানান, ‘মরদেহ মর্গে রাখা হয়েছে। এখনও তার মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে জানা যায়নি। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।’
এদিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক এবং ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।
মৃত্যুকালে রাজু আহমেদের বয়স হয়েছিল ১৯ বছর। তার গ্রামের বাড়ি পঞ্চগড় জেলায়।

শ্বাসকষ্টে জবি শিক্ষার্থীর অকাল মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৪:৪৩:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ এপ্রিল ২০২৩

সাকিবুল ইসলাম, জবি প্রতিনিধি:
খিঁচুনি ও শ্বাসকষ্টে অজ্ঞানরত অবস্থায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। ওই শিক্ষার্থীর নাম মো. রাজু আহমেদ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থী।
শনিবার রাত ৮টার দিকে পুরান ঢাকার নারিন্দার একটি মেস থেকে অচেতন অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। রাজুর সহপাঠীরা ও বিভাগের শিক্ষার্থীও তার মৃত্যুর বিষয়টি জানিয়েছেন।
মৃত রাজুর রুমমেট মো. শরিয়তুল্লাহ জানান, তারা নারিন্দা কাঁচাবাজার চিনি টুকরা মসজিদের পাশে একটি বাড়ির ৫ম তলায় মেসে থাকেন। ঈদের ছুটি কাটিয়ে শনিবার বিকেলে গ্রাম থেকে ঢাকায় আসেন রাজু। মেসে এসে গরুর মাংস দিয়ে ভাত খেয়ে নিজের রুমে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে রাজু হঠাৎ অচেতন হয়ে পড়েন। দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল বলেন, ‘আমি মৃত্যুর বিষয়টি শুনেছি৷পরিবারের সাথে যোগাযোগ করে লাশ বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।’
ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মো. বাচ্চু মিয়া জানান, ‘মরদেহ মর্গে রাখা হয়েছে। এখনও তার মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে জানা যায়নি। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।’
এদিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক এবং ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।
মৃত্যুকালে রাজু আহমেদের বয়স হয়েছিল ১৯ বছর। তার গ্রামের বাড়ি পঞ্চগড় জেলায়।