ঢাকা ০১:৩২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ম্যাচ জেতার কৃতিত্ব কাকে দিলেন মুশফিক?

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০২:২৩:৪১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ মার্চ ২০২৪ ৩০ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি :

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৬ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ। অধিনায়ক নাজমুল হাসান শান্ত ও মুশফিকুর রহিম ১৬৫ রানের জুটি গড়েন। তবে ম্যাচ জেতার কৃতিত্ব অন্য জুটিকে দিয়েছেন মুশফিক।

২৫৬ রানের টার্গেট নিয়ে ব্যাট করতে গিয়ে ২৩ রানের মধ্যেই হারিয়ে ফেলেন ৩ উইকেট। এমন বাজে পরিস্থিতিতে রিয়াদের সঙ্গে ৬৯ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক শান্ত মাহমুদউল্লাহ। এরপর ৩৭ রান করে বিদায় নেন অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ। মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে শান্তর জুটিকে নিজের চেয়ে ম্যাচ জেতার বড় কারণ হিসেবে দেখছেন মুশফিক।

ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে মুশফিক বলেন, ‘একেই বলে অভিজ্ঞতা। শুধু এই ওভারই না। হাসারাঙ্গাকে ডাউন দ্য উইকেটে গিয়ে ছক্কা মারা। গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে এসব যখন পক্ষে আছে, প্রতিপক্ষের সেরা বোলার যখন চাপে পড়ে যায় তখন তারাও ভিন্ন চিন্তা করে। উইকেটের জন্য যায় না, ভাবে এক এক করে ছেড়ে দেই।’

মাহমুদউল্লাহর অভিজ্ঞতার কথা উল্লেখ করে মুশফিক আরও বলেন, ‘তখনই পার্টনারশিপটা ভালো বিল্ডআপ হয়। অভিজ্ঞতা অনেক বড় জিনিস। রিয়াদ ভাই যে ইনটেন্টটা দেখিয়েছে। এই পুরো ম্যাচের প্রথম কৃতিত্ব রিয়াদ ভাই ও শান্তর পার্টনারশিপ।

ম্যাচ জেতার কৃতিত্ব কাকে দিলেন মুশফিক?

আপডেট সময় : ০২:২৩:৪১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ মার্চ ২০২৪

নিজস্ব প্রতিনিধি :

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৬ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ। অধিনায়ক নাজমুল হাসান শান্ত ও মুশফিকুর রহিম ১৬৫ রানের জুটি গড়েন। তবে ম্যাচ জেতার কৃতিত্ব অন্য জুটিকে দিয়েছেন মুশফিক।

২৫৬ রানের টার্গেট নিয়ে ব্যাট করতে গিয়ে ২৩ রানের মধ্যেই হারিয়ে ফেলেন ৩ উইকেট। এমন বাজে পরিস্থিতিতে রিয়াদের সঙ্গে ৬৯ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক শান্ত মাহমুদউল্লাহ। এরপর ৩৭ রান করে বিদায় নেন অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ। মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে শান্তর জুটিকে নিজের চেয়ে ম্যাচ জেতার বড় কারণ হিসেবে দেখছেন মুশফিক।

ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে মুশফিক বলেন, ‘একেই বলে অভিজ্ঞতা। শুধু এই ওভারই না। হাসারাঙ্গাকে ডাউন দ্য উইকেটে গিয়ে ছক্কা মারা। গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে এসব যখন পক্ষে আছে, প্রতিপক্ষের সেরা বোলার যখন চাপে পড়ে যায় তখন তারাও ভিন্ন চিন্তা করে। উইকেটের জন্য যায় না, ভাবে এক এক করে ছেড়ে দেই।’

মাহমুদউল্লাহর অভিজ্ঞতার কথা উল্লেখ করে মুশফিক আরও বলেন, ‘তখনই পার্টনারশিপটা ভালো বিল্ডআপ হয়। অভিজ্ঞতা অনেক বড় জিনিস। রিয়াদ ভাই যে ইনটেন্টটা দেখিয়েছে। এই পুরো ম্যাচের প্রথম কৃতিত্ব রিয়াদ ভাই ও শান্তর পার্টনারশিপ।