ঢাকা ০২:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মিলেছে বৃহত্তম ব্ল্যাকহোলের সন্ধান, ভর সূর্যের চেয়ে ৩৩ গুণ বেশি!

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০২:১১:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪ ৪৯ বার পঠিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

গ্যালাক্সিতে সবচেয়ে বড় ব্ল্যাক হোলের সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। এর ভর সূর্যের ৩৩ গুণ। এতদিন এটি আবিষ্কার করা সম্ভব হয়নি। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) প্রকাশিত এক গবেষণা পত্রে ফরাসি গবেষকরা এ তথ্য জানিয়েছেন।

নতুন আবিষ্কৃত ব্ল্যাক হোলের নাম গাইয়া বিএইচ৩। প্যারিসের মানমন্দিরের ন্যাশনাল সেন্টার ফর সায়েন্টিফিক রিসার্চের (সিএনআরএস) জ্যোতির্বিজ্ঞানী পাসকুয়েল পানুজ্জো বলেছেন যে বিজ্ঞানীরা অনেকটা আকস্মিকভাবেই এই ব্ল্যাকহোলটি আবিষ্কার করে ফেলেছেন। ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির গায়া মিশন দ্বারা সংগৃহীত তথ্য বিশ্লেষণ করে এটি আবিষ্কৃত হয়েছে।

গাইয়া মিশনটি মূলত মিল্কিওয়ে ছায়াপথের ম্যাপ তৈরিতে কাজ করেছে। এটি এবার পৃথিবী থেকে ২ হাজার আলোকবর্ষ দূরে আকুইলা গ্রহাণুপুঞ্জে বিএইচ৩ নামের ব্ল্যাকহোলটিকে শনাক্ত করেছে। গাইয়ার টেলিস্কোপ মূলত আকাশে কোনো নক্ষত্রের নিখুঁত অবস্থান শনাক্ত করতে পারে। এর তথ্য থেকে জ্যোতির্বিদেরা নক্ষত্রের কক্ষপথ, তাদের ভর ও অদৃশ্য সঙ্গীকে খুঁজে বের করতে পারেন।

গাইয়ার টেলিস্কোপ থেকে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে ব্ল্যাকহোলটির অবস্থান শনাক্তের পর ভূপৃষ্ঠের টেলিস্কোপ ব্যবহার করে এর অস্তিত্বের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

মিলেছে বৃহত্তম ব্ল্যাকহোলের সন্ধান, ভর সূর্যের চেয়ে ৩৩ গুণ বেশি!

আপডেট সময় : ০২:১১:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

গ্যালাক্সিতে সবচেয়ে বড় ব্ল্যাক হোলের সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। এর ভর সূর্যের ৩৩ গুণ। এতদিন এটি আবিষ্কার করা সম্ভব হয়নি। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) প্রকাশিত এক গবেষণা পত্রে ফরাসি গবেষকরা এ তথ্য জানিয়েছেন।

নতুন আবিষ্কৃত ব্ল্যাক হোলের নাম গাইয়া বিএইচ৩। প্যারিসের মানমন্দিরের ন্যাশনাল সেন্টার ফর সায়েন্টিফিক রিসার্চের (সিএনআরএস) জ্যোতির্বিজ্ঞানী পাসকুয়েল পানুজ্জো বলেছেন যে বিজ্ঞানীরা অনেকটা আকস্মিকভাবেই এই ব্ল্যাকহোলটি আবিষ্কার করে ফেলেছেন। ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির গায়া মিশন দ্বারা সংগৃহীত তথ্য বিশ্লেষণ করে এটি আবিষ্কৃত হয়েছে।

গাইয়া মিশনটি মূলত মিল্কিওয়ে ছায়াপথের ম্যাপ তৈরিতে কাজ করেছে। এটি এবার পৃথিবী থেকে ২ হাজার আলোকবর্ষ দূরে আকুইলা গ্রহাণুপুঞ্জে বিএইচ৩ নামের ব্ল্যাকহোলটিকে শনাক্ত করেছে। গাইয়ার টেলিস্কোপ মূলত আকাশে কোনো নক্ষত্রের নিখুঁত অবস্থান শনাক্ত করতে পারে। এর তথ্য থেকে জ্যোতির্বিদেরা নক্ষত্রের কক্ষপথ, তাদের ভর ও অদৃশ্য সঙ্গীকে খুঁজে বের করতে পারেন।

গাইয়ার টেলিস্কোপ থেকে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে ব্ল্যাকহোলটির অবস্থান শনাক্তের পর ভূপৃষ্ঠের টেলিস্কোপ ব্যবহার করে এর অস্তিত্বের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছেন বিজ্ঞানীরা।