ঢাকা ০৭:১১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিশ্বে ৪০ কোটি শিশু ভয়াবহ শাস্তির শিকার!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
  • আপডেট সময় : ০২:১৪:৫৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪ ৩৭ বার পঠিত

বিশ্বে গত ১৩ বছরে ৪০ কোটি শিশু ভয়াবহ শারীরিক ও মানসিক শাস্তি ভোগ করেছে। ২০১০ থেকে ২০২৩ পর্যন্ত, এই শিশুরা নিজ বাড়িতেই শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তাদের বেশিরভাগের বয়স পাঁচ বছর। জাতিসংঘের বৈশ্বিক শিশু নিরাপত্তা ও অধিকার বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই ৪০ কোটি শিশুর মধ্যে প্রায় ৩৩ কোটি শিশু একাধিকবার শারীরিক শাস্তি বা প্রহারের শিকার হয়েছে, বাকিরা মানসিক শাস্তির শিকার হয়েছে।

ইউনিসেফের সংজ্ঞা অনুসারে, শিশুদের সঙ্গে ধমকের সুরে চিৎকার বা উচ্চ স্বরে কথা বলা, তাদের গালাগাল করা মানসিক শাস্তি প্রদানের শামিল। বিশ্বের অনেক দেশেই শিশুদের প্রহার করা আইনত নিষিদ্ধ।

তবে ইউনিসেফের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে বিশ্ব জুড়ে প্রায় ৫০ কোটি শিশু যে কোনো সময় প্রহারের শিকার হওয়ার ঝুঁকিতে থাকে। এসব শিশুর মধ্যে এমন বহু দেশের শিশু রয়েছে, যেসব দেশে শিশুদের প্রহার বা শারীরিক শাস্তি দেওয়া নিষিদ্ধ।

অনেক অভিভাবকও শাস্তির নামে শিশু নির্যাতনকে সমর্থন করেন। ইউনিসেফ সোমবার এক প্রতিবেদনে বলেছে, বিশ্বজুড়ে প্রতি চারজনের মধ্যে একজন মা বিশ্বাস করেন যে শিশুদের সঠিকভাবে বড় করার জন্য তাদের পেটানো বা শারীরিকভাবে শাস্তি দেওয়া দরকার। তবে তাদের ধারণা একেবারেই সঠিক নয় বলে জানিয়েছেন ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক ক্যাথরিন রাসেল।

বিশ্বে ৪০ কোটি শিশু ভয়াবহ শাস্তির শিকার!

আপডেট সময় : ০২:১৪:৫৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪

বিশ্বে গত ১৩ বছরে ৪০ কোটি শিশু ভয়াবহ শারীরিক ও মানসিক শাস্তি ভোগ করেছে। ২০১০ থেকে ২০২৩ পর্যন্ত, এই শিশুরা নিজ বাড়িতেই শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তাদের বেশিরভাগের বয়স পাঁচ বছর। জাতিসংঘের বৈশ্বিক শিশু নিরাপত্তা ও অধিকার বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই ৪০ কোটি শিশুর মধ্যে প্রায় ৩৩ কোটি শিশু একাধিকবার শারীরিক শাস্তি বা প্রহারের শিকার হয়েছে, বাকিরা মানসিক শাস্তির শিকার হয়েছে।

ইউনিসেফের সংজ্ঞা অনুসারে, শিশুদের সঙ্গে ধমকের সুরে চিৎকার বা উচ্চ স্বরে কথা বলা, তাদের গালাগাল করা মানসিক শাস্তি প্রদানের শামিল। বিশ্বের অনেক দেশেই শিশুদের প্রহার করা আইনত নিষিদ্ধ।

তবে ইউনিসেফের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে বিশ্ব জুড়ে প্রায় ৫০ কোটি শিশু যে কোনো সময় প্রহারের শিকার হওয়ার ঝুঁকিতে থাকে। এসব শিশুর মধ্যে এমন বহু দেশের শিশু রয়েছে, যেসব দেশে শিশুদের প্রহার বা শারীরিক শাস্তি দেওয়া নিষিদ্ধ।

অনেক অভিভাবকও শাস্তির নামে শিশু নির্যাতনকে সমর্থন করেন। ইউনিসেফ সোমবার এক প্রতিবেদনে বলেছে, বিশ্বজুড়ে প্রতি চারজনের মধ্যে একজন মা বিশ্বাস করেন যে শিশুদের সঠিকভাবে বড় করার জন্য তাদের পেটানো বা শারীরিকভাবে শাস্তি দেওয়া দরকার। তবে তাদের ধারণা একেবারেই সঠিক নয় বলে জানিয়েছেন ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক ক্যাথরিন রাসেল।