ঢাকা ০৫:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজয়নগরে অতর্কিত হামলায় চেয়ারম্যানসহ এক যুবক গুরুতর আহত

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৬:৪০:৩৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ মার্চ ২০২৩ ৬ বার পঠিত

মনিরুজ্জামান মনির, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে অতর্কিত হামলায় এক যুবক গুরুতর আহত হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়নের খাদুরাইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়,একই গ্রামের সাবেক চেয়ারম্যান হাজী আক্তার হোসেন ও বর্তমান চেয়ারম্যান জিয়াউল হক বকুলের গোষ্টির মধ্যে দীর্ঘদিনের বিরোধ চলে আসছে। এরই জেরে গত মঙ্গলবার রাতে মোঃ মোশাররফ হোসেন (৪০) কে একা পেয়ে ৪/৫ টি মটর সাইকেলে করে এসে ১০/১২ জন লোক অতর্কিত ভাবে হামলা করে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে। তাকে মারধরের খবর পেয়ে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনার স্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে।বর্তমানে এলাকায় থম থমে অবস্থা বিরাজ করছে। এদিকে এলাকার পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে পুলিশি পদক্ষেপ জোড়দার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে। গুরুতর আহত মোশাররফ হোসেনকে উদ্ধার করে প্রথমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থা আশংকা জনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা প্রেরন করেন।ঘটনার পর পর এলাকায় বাড়তি পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। এদিকে ইছাপুরা ইউপির চেয়ারম্যান জিয়াউল হক বকুলকে থানায় পুলিশি হেফাজতে আনা হয়েছে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে বিজয়নগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রাজু আহম্মেদ এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কি নিয়ে ঘটনার সূত্রপাত তা এখনো বলা যাচ্ছে না। ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌঁছান। ইউপি চেয়ারম্যানকে আটক করা হয়েছে।

 

বিজয়নগরে অতর্কিত হামলায় চেয়ারম্যানসহ এক যুবক গুরুতর আহত

আপডেট সময় : ০৬:৪০:৩৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ মার্চ ২০২৩

মনিরুজ্জামান মনির, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে অতর্কিত হামলায় এক যুবক গুরুতর আহত হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়নের খাদুরাইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়,একই গ্রামের সাবেক চেয়ারম্যান হাজী আক্তার হোসেন ও বর্তমান চেয়ারম্যান জিয়াউল হক বকুলের গোষ্টির মধ্যে দীর্ঘদিনের বিরোধ চলে আসছে। এরই জেরে গত মঙ্গলবার রাতে মোঃ মোশাররফ হোসেন (৪০) কে একা পেয়ে ৪/৫ টি মটর সাইকেলে করে এসে ১০/১২ জন লোক অতর্কিত ভাবে হামলা করে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে। তাকে মারধরের খবর পেয়ে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনার স্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে।বর্তমানে এলাকায় থম থমে অবস্থা বিরাজ করছে। এদিকে এলাকার পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে পুলিশি পদক্ষেপ জোড়দার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে। গুরুতর আহত মোশাররফ হোসেনকে উদ্ধার করে প্রথমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থা আশংকা জনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা প্রেরন করেন।ঘটনার পর পর এলাকায় বাড়তি পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। এদিকে ইছাপুরা ইউপির চেয়ারম্যান জিয়াউল হক বকুলকে থানায় পুলিশি হেফাজতে আনা হয়েছে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে বিজয়নগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রাজু আহম্মেদ এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কি নিয়ে ঘটনার সূত্রপাত তা এখনো বলা যাচ্ছে না। ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌঁছান। ইউপি চেয়ারম্যানকে আটক করা হয়েছে।