ঢাকা ১০:৫৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo উত্তরায় গুলিতে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ শিক্ষার্থী নিহত Logo কোটা সংস্কারের দাবির সঙ্গে একমত পোষণ করেছে সরকার: আইনমন্ত্রী Logo মোবাইলে ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ Logo ঢাকার সঙ্গে সব জেলার যোগাযোগ বন্ধ, টার্মিনাল থেকে ছাড়ছে না কোনো বাস Logo ছাত্রলীগের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সংঘর্ষ, ঢাকা চট্টগ্রামে ও রংপুরে ৫ জন নিহত Logo কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের দফায় দফায় সংঘর্ষ, সারাদেশে নিহত ৫ Logo ডেসকো’র উদ্যোগে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন Logo র‍্যাংগস ই-মার্ট এনেছে এলজির নতুন ও এলইডি সি থ্রি সিরিজ ২০২৪ Logo বিদ্যুতের খুঁটিতে আটকা আঞ্চলিক দুই মহাসড়কের কাজ, দুর্ভোগ-ভোগান্তি Logo কোটা আন্দোলনকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করার ইচ্ছা নেই: ওবায়দুল কাদের

বাগেরহাটে মুক্তিযোদ্ধা সংসদে হামলা ও ভাংচুর

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৭:৩৯:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ মার্চ ২০২৩ ২৩ বার পঠিত

বাগেরহাট প্রতিনিধি:
বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নবী পরাগের নেতৃত্ব মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে। রবিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে খাউলিয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ে এ হামলার সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা বাদল চন্দ্র করকে (৬২) লাঞ্ছিতসহ আহত হয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আরও ৯ জন সদস্য। অফিসে থাকা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ব্যানার তছনছ করে ফেলা হয়েছে। ঘটনার সময় ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে মোরেলগঞ্জ থানা ও নিকটস্থ ফাঁড়ি থেকে পুলিশের পৃথক দুটি দল ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।
পরে পুলিশের আহত বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম মন্টুর ছেলে মাহফুজ হাওলাদারকে (৩৫) এ্যাম্বুলেন্সে করে মোরেলগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি পর তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। অপর আহতদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড খাউলিয়া ইউনিয়ন শাখার সদস্য জাকির হোসেন, মনিরুজ্জামান, মিরাজ আকন, শাহিন আকন, জাকির আল মামুন, জাহাঙ্গীর হাওলাদার, নাছির উদ্দীন বয়াতী, ইদ্রিস শেখ ও সুমন কর স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
এ বিষয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত লাঞ্ছিত বীর মুক্তিযোদ্ধা বাদল চন্দ্র কর ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই খান বলেন, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মাষ্টার সাইদুর রহমানের ছেলে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নবী পরাগের নেতৃত্ব ১০ থেকে ১২ জনের একটি সন্ত্রাসী দল মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ে ঢুকে অতর্কিতে মারধর ও ভাংচুর করে। এতে একজন মুক্তিযোদ্ধা লাঞ্ছিত ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের ১০ জন আহত হয়েছেন।
এ বিষয়ে থানার ওসি মো. সাইদুর রহমান বলেন, ‘৯৯৯ নম্বর থেকে ফোন পেয়ে খাউলিয়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ের উদ্দেশ্য পুলিশ পাঠানো হয়। একজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি।’

 

বাগেরহাটে মুক্তিযোদ্ধা সংসদে হামলা ও ভাংচুর

আপডেট সময় : ০৭:৩৯:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ মার্চ ২০২৩

বাগেরহাট প্রতিনিধি:
বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নবী পরাগের নেতৃত্ব মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে। রবিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে খাউলিয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ে এ হামলার সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা বাদল চন্দ্র করকে (৬২) লাঞ্ছিতসহ আহত হয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আরও ৯ জন সদস্য। অফিসে থাকা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ব্যানার তছনছ করে ফেলা হয়েছে। ঘটনার সময় ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে মোরেলগঞ্জ থানা ও নিকটস্থ ফাঁড়ি থেকে পুলিশের পৃথক দুটি দল ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।
পরে পুলিশের আহত বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম মন্টুর ছেলে মাহফুজ হাওলাদারকে (৩৫) এ্যাম্বুলেন্সে করে মোরেলগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি পর তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। অপর আহতদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড খাউলিয়া ইউনিয়ন শাখার সদস্য জাকির হোসেন, মনিরুজ্জামান, মিরাজ আকন, শাহিন আকন, জাকির আল মামুন, জাহাঙ্গীর হাওলাদার, নাছির উদ্দীন বয়াতী, ইদ্রিস শেখ ও সুমন কর স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
এ বিষয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত লাঞ্ছিত বীর মুক্তিযোদ্ধা বাদল চন্দ্র কর ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই খান বলেন, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মাষ্টার সাইদুর রহমানের ছেলে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নবী পরাগের নেতৃত্ব ১০ থেকে ১২ জনের একটি সন্ত্রাসী দল মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ে ঢুকে অতর্কিতে মারধর ও ভাংচুর করে। এতে একজন মুক্তিযোদ্ধা লাঞ্ছিত ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের ১০ জন আহত হয়েছেন।
এ বিষয়ে থানার ওসি মো. সাইদুর রহমান বলেন, ‘৯৯৯ নম্বর থেকে ফোন পেয়ে খাউলিয়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ের উদ্দেশ্য পুলিশ পাঠানো হয়। একজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি।’