ঢাকা ০৩:১৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo আমের খোসায়ও আছে অনেক পুষ্টি! Logo ৫৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের উচ্চ-সক্ষমতা সম্পন্ন ব্যাটারির ফোন আনলো ওয়ানপ্লাস বাংলাদেশ Logo জাবির সাবেক উপাচার্য ড. কাজী সালেহ আহমেদ আর নেই Logo বাংলাদেশকে হারিয়ে ইতিহাস গড়ে সেমিফাইনালে আফগানিস্তান Logo ইসরায়েলি হামলায় হামাস প্রধানের বোনসহ নিহত ১০ Logo দেশ বিক্রির যারা অভিযোগ তুলে তারাই বিক্রি হয়:প্রধানমন্ত্রী Logo বৃষ্টি বাধা জয় করে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকা Logo তীব্র তাপপ্রবাহ:চলতি বছর ১৩০১ হজযাত্রীর মৃত্যু Logo চিন্তার কিছু নেই, নতুন প্রজন্মই স্মার্ট বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে:প্রধানমন্ত্রী Logo তুরস্কের দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে ভয়াবহ দাবানলে অন্তত ১২ জন নিহত

বাংলাদেশে বাণিজ্য বিনিয়োগ ও ব্যবসায়িক সম্পর্ক সম্প্রসারিত করতে সম্মত হাঙ্গেরি সরকার

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০১:৫৩:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ মে ২০২৩ ২১ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি:

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, হাঙ্গেরি সরকার বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও ব্যবসায়িক সম্পর্ক গভীর ও সম্প্রসারণে সম্মত হয়েছে। শুক্রবার স্থানীয় সময় বুদাপেস্টে হাঙ্গেরির পররাষ্ট্র ও বাণিজ্য মন্ত্রী পিটার সিজ্জারটোরের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে দেশটি এই আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

টিপু মুনশি হাঙ্গেরির পররাষ্ট্র ও বাণিজ্যমন্ত্রীর আমন্ত্রণে দেশটিতে সফর করছেন। এটি বাংলাদেশের কোনো বাণিজ্যমন্ত্রীর হাঙ্গেরিতে প্রথম সরকারি সফর। বাংলাদেশে ব্যাপক সুযোগ-সুবিধা, আকর্ষণীয় প্রণোদনা এবং অনুকূল ব্যবসায়িক পরিবেশসহ এই অঞ্চলে সবচেয়ে উদার বিনিয়োগ ব্যবস্থা রয়েছে উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী হাঙ্গেরির ব্যবসায়ী ও কোম্পানিগুলোকে বাংলাদেশে বিনিয়োগ ও বাণিজ্য সম্প্রসারণের আহ্বান জানান।

তিনি হাঙ্গেরির ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশকে বেছে নেওয়ার আহ্বান জানান। বাংলাদেশ সরকার দেশে একশটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলছে এবং বলেছে যে বাংলাদেশের বিনিয়োগবান্ধব নীতি এবং বিভিন্ন বিদেশী বাজারে বাংলাদেশী পণ্যের শুল্কমুক্ত ও কোটামুক্ত প্রবেশাধিকার ভূমিকা রাখবে।

টিপু মুনশি ইইউ আলোচনার সময় সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি হাঙ্গেরির সরকারের প্রতি বাংলাদেশকে নীতিগত সহায়তা ও অপারেশনাল সহযোগিতার আহ্বান জানান। বিশেষ করে স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) অবস্থা থেকে উত্তরণের পর বিশ্ববাজারে বাংলাদেশি পণ্যের প্রবেশাধিকারের বিষয়ে তিনি সহযোগিতা কামনা করেন। এদিকে হাঙ্গেরির বাণিজ্যমন্ত্রী এ ব্যাপারে তার দেশের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

বৈঠকে, উভয় মন্ত্রী অতীতে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধির উপর তাদের সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের আরও সম্প্রসারণের জন্য নতুন উপায় অনুসন্ধানের প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দেন।

এছাড়া তারা দুই দেশের বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ীদের কাছাকাছি আনতে বেসরকারি খাতের মধ্যে সহযোগিতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন। এটি দুই দেশের মধ্যে বি-টু-বি সংযোগ এবং বাণিজ্য বৃদ্ধিকে শক্তিশালী করতে সহায়তা করবে বলেও বলা হয়।

উভয় মন্ত্রীই স্টিপেনডিয়াম হাঙ্গারিকাম প্রোগ্রামের প্রতি সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন, যার অধীনে ১৪০ জন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী হাঙ্গেরি থেকে সম্পূর্ণ সরকারি বৃত্তি পাবে এবং স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরে অধ্যয়নের সুযোগ পাবে।

বাংলাদেশে বাণিজ্য বিনিয়োগ ও ব্যবসায়িক সম্পর্ক সম্প্রসারিত করতে সম্মত হাঙ্গেরি সরকার

আপডেট সময় : ০১:৫৩:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ মে ২০২৩

নিজস্ব প্রতিনিধি:

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, হাঙ্গেরি সরকার বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও ব্যবসায়িক সম্পর্ক গভীর ও সম্প্রসারণে সম্মত হয়েছে। শুক্রবার স্থানীয় সময় বুদাপেস্টে হাঙ্গেরির পররাষ্ট্র ও বাণিজ্য মন্ত্রী পিটার সিজ্জারটোরের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে দেশটি এই আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

টিপু মুনশি হাঙ্গেরির পররাষ্ট্র ও বাণিজ্যমন্ত্রীর আমন্ত্রণে দেশটিতে সফর করছেন। এটি বাংলাদেশের কোনো বাণিজ্যমন্ত্রীর হাঙ্গেরিতে প্রথম সরকারি সফর। বাংলাদেশে ব্যাপক সুযোগ-সুবিধা, আকর্ষণীয় প্রণোদনা এবং অনুকূল ব্যবসায়িক পরিবেশসহ এই অঞ্চলে সবচেয়ে উদার বিনিয়োগ ব্যবস্থা রয়েছে উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী হাঙ্গেরির ব্যবসায়ী ও কোম্পানিগুলোকে বাংলাদেশে বিনিয়োগ ও বাণিজ্য সম্প্রসারণের আহ্বান জানান।

তিনি হাঙ্গেরির ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশকে বেছে নেওয়ার আহ্বান জানান। বাংলাদেশ সরকার দেশে একশটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলছে এবং বলেছে যে বাংলাদেশের বিনিয়োগবান্ধব নীতি এবং বিভিন্ন বিদেশী বাজারে বাংলাদেশী পণ্যের শুল্কমুক্ত ও কোটামুক্ত প্রবেশাধিকার ভূমিকা রাখবে।

টিপু মুনশি ইইউ আলোচনার সময় সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি হাঙ্গেরির সরকারের প্রতি বাংলাদেশকে নীতিগত সহায়তা ও অপারেশনাল সহযোগিতার আহ্বান জানান। বিশেষ করে স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) অবস্থা থেকে উত্তরণের পর বিশ্ববাজারে বাংলাদেশি পণ্যের প্রবেশাধিকারের বিষয়ে তিনি সহযোগিতা কামনা করেন। এদিকে হাঙ্গেরির বাণিজ্যমন্ত্রী এ ব্যাপারে তার দেশের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

বৈঠকে, উভয় মন্ত্রী অতীতে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধির উপর তাদের সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের আরও সম্প্রসারণের জন্য নতুন উপায় অনুসন্ধানের প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দেন।

এছাড়া তারা দুই দেশের বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ীদের কাছাকাছি আনতে বেসরকারি খাতের মধ্যে সহযোগিতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন। এটি দুই দেশের মধ্যে বি-টু-বি সংযোগ এবং বাণিজ্য বৃদ্ধিকে শক্তিশালী করতে সহায়তা করবে বলেও বলা হয়।

উভয় মন্ত্রীই স্টিপেনডিয়াম হাঙ্গারিকাম প্রোগ্রামের প্রতি সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন, যার অধীনে ১৪০ জন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী হাঙ্গেরি থেকে সম্পূর্ণ সরকারি বৃত্তি পাবে এবং স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরে অধ্যয়নের সুযোগ পাবে।