ঢাকা ০৭:১৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo নরসিংদীতে সংবর্ধনা নেওয়ার সময় ভূয়া ম্যাজিস্ট্রেট আটক, তিন মাসের সাজা Logo দেশের বাজারে বয়া এর নতুন অল ইন ওয়ান ওয়ারলেস মাইক্রোফোন Logo সাড়ে চারশ কোটির হীরার নেকলেসে নজর কাড়লেন প্রিয়াঙ্কা Logo  পৃথিবীতে কোন দেশের মেয়েরা সবচেয়ে বেশি সুন্দরী Logo বাংলাদেশ ব্যাংকে সাংবাদিক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেশের গণতন্ত্র-মৌলিক অধিকারের পরিপন্থী Logo ঈদের সময় ১১ দিন বাল্কহেড চলাচল বন্ধ Logo বিএসআরএফ বার্তা’র মোড়ক উম্মোচন করলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী Logo টানা ছয় ম্যাচ জিতে প্লে অফ নিশ্চিত করলেও শেষমেশ বিদায় নিলো বেঙ্গালুরু Logo গাজায় মসজিদে ইসরায়েলি হামলা, ১০ শিশুসহ নিহত ১৬ Logo এমপি আনোয়ারুল হত্যাকাণ্ড: ঢাকায় আসছে ভারতীয় পুলিশের স্পেশাল টিম

প্রকৃত কাঠামোগত রূপান্তরে অনুদান নয় প্রাপ্য চায় স্বল্পোন্নত দেশগুলো:প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৮:২৪:৫২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ মার্চ ২০২৩ ৯ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) অনুদান নয়, আন্তর্জাতিক প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী প্রকৃত কাঠামোগত রূপান্তরের জন্য তাদের প্রাপ্য চায়। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবশ্যই স্বল্পোন্নত দেশগুলিতে প্রকৃত কাঠামোগত রূপান্তরের প্রতি তার অঙ্গীকার পুনর্বিবেচনা করতে হবে।
স্থানীয় সময় রবিবার প্রধানমন্ত্রী কাতার ন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে (কিউএনসিসি) স্বল্পোন্নত দেশগুলির (এলডিসি ৫: সম্ভাবনা থেকে সমৃদ্ধি) ৫তম জাতিসংঘ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে ভাষণ দেন।

তিনি বলেন, দোহা কর্মসূচি বিশ্বের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর জন্য আরেকটি আশার আশ্বাস। স্বল্পোন্নত দেশগুলিকে স্বল্পোন্নত দেশে রূপান্তরিত করার জন্য তাদের কর্মক্ষমতার জন্য কিছু প্রণোদনা থাকা উচিত। তাদের বর্ধিত সময়ের জন্য স্বল্পোন্নত দেশগুলিতে আন্তর্জাতিক সহায়তা উপভোগ করা উচিত। তাদের জানতে হবে কীভাবে আরও ভালো বিনিয়োগ ও উৎপাদনশীল সক্ষমতা তৈরি করা যায়।প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বল্পোন্নত দেশে ঋণ টিকিয়ে রাখার উপায় আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যম রয়েছে। স্বল্পোন্নত দেশগুলির জন্য জলবায়ু অর্থায়নকে নমনীয় এবং অনুমানযোগ্য করতে হবে। স্বল্পোন্নত দেশগুলিতে প্রযুক্তি হস্তান্তর বাস্তব এবং অর্থবহ হতে হবে। আমাদের অভিবাসী শ্রমিকদের তাদের অধিকার ও মঙ্গলের জন্য সুরক্ষা প্রয়োজন। আমরা এলডিসি এর ২২৬ মিলিয়ন তরুণদের ব্যর্থ করতে পারি না।বৈঠকে শেখ হাসিনা বলেন, মহামারী এবং তারপর ইউক্রেনের যুদ্ধ এলডিসি অর্থনীতিতে বড় ধাক্কা দিয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজারে খাদ্য ও জ্বালানির দাম বৃদ্ধির ফলে স্বল্পোন্নত দেশগুলোর অধিকাংশেই মুদ্রাস্ফীতি বেড়েছে।প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য বাংলাদেশের অধিকাংশ গল্প নিয়ে আলোচনা করেছি এবং সহযোগিতার জন্য আমাদের নেওয়া পদক্ষেপগুলো তুলে ধরেছি। বেশিরভাগ উন্নত এবং উদীয়মান অর্থনীতির কাছ থেকে আমরা যে শুল্ক এবং কোটা-মুক্ত অ্যাক্সেস পেয়েছি তা আমাদের বেসরকারি খাতকে একটি শক্তিশালী উৎপাদন ভিত্তি তৈরি করতে সাহায্য করেছে।

প্রকৃত কাঠামোগত রূপান্তরে অনুদান নয় প্রাপ্য চায় স্বল্পোন্নত দেশগুলো:প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৮:২৪:৫২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ মার্চ ২০২৩

নিজস্ব প্রতিনিধি:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) অনুদান নয়, আন্তর্জাতিক প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী প্রকৃত কাঠামোগত রূপান্তরের জন্য তাদের প্রাপ্য চায়। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবশ্যই স্বল্পোন্নত দেশগুলিতে প্রকৃত কাঠামোগত রূপান্তরের প্রতি তার অঙ্গীকার পুনর্বিবেচনা করতে হবে।
স্থানীয় সময় রবিবার প্রধানমন্ত্রী কাতার ন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে (কিউএনসিসি) স্বল্পোন্নত দেশগুলির (এলডিসি ৫: সম্ভাবনা থেকে সমৃদ্ধি) ৫তম জাতিসংঘ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে ভাষণ দেন।

তিনি বলেন, দোহা কর্মসূচি বিশ্বের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর জন্য আরেকটি আশার আশ্বাস। স্বল্পোন্নত দেশগুলিকে স্বল্পোন্নত দেশে রূপান্তরিত করার জন্য তাদের কর্মক্ষমতার জন্য কিছু প্রণোদনা থাকা উচিত। তাদের বর্ধিত সময়ের জন্য স্বল্পোন্নত দেশগুলিতে আন্তর্জাতিক সহায়তা উপভোগ করা উচিত। তাদের জানতে হবে কীভাবে আরও ভালো বিনিয়োগ ও উৎপাদনশীল সক্ষমতা তৈরি করা যায়।প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বল্পোন্নত দেশে ঋণ টিকিয়ে রাখার উপায় আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যম রয়েছে। স্বল্পোন্নত দেশগুলির জন্য জলবায়ু অর্থায়নকে নমনীয় এবং অনুমানযোগ্য করতে হবে। স্বল্পোন্নত দেশগুলিতে প্রযুক্তি হস্তান্তর বাস্তব এবং অর্থবহ হতে হবে। আমাদের অভিবাসী শ্রমিকদের তাদের অধিকার ও মঙ্গলের জন্য সুরক্ষা প্রয়োজন। আমরা এলডিসি এর ২২৬ মিলিয়ন তরুণদের ব্যর্থ করতে পারি না।বৈঠকে শেখ হাসিনা বলেন, মহামারী এবং তারপর ইউক্রেনের যুদ্ধ এলডিসি অর্থনীতিতে বড় ধাক্কা দিয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজারে খাদ্য ও জ্বালানির দাম বৃদ্ধির ফলে স্বল্পোন্নত দেশগুলোর অধিকাংশেই মুদ্রাস্ফীতি বেড়েছে।প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য বাংলাদেশের অধিকাংশ গল্প নিয়ে আলোচনা করেছি এবং সহযোগিতার জন্য আমাদের নেওয়া পদক্ষেপগুলো তুলে ধরেছি। বেশিরভাগ উন্নত এবং উদীয়মান অর্থনীতির কাছ থেকে আমরা যে শুল্ক এবং কোটা-মুক্ত অ্যাক্সেস পেয়েছি তা আমাদের বেসরকারি খাতকে একটি শক্তিশালী উৎপাদন ভিত্তি তৈরি করতে সাহায্য করেছে।