ঢাকা ১০:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডলারের দাম বাড়লেও কোরবানির ঈদের আগে ভোজ্যতেলের দাম বাড়বে না

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৪:৩০:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪ ৩৩ বার পঠিত

ডলারের দাম বাড়লেও আসন্ন ঈদুল আজহার আগে দেশের বাজারে ভোজ্যতেলের দাম সমন্বয় করা হবে না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসমল টিটু।

তিনি বলেন, আমদানিনির্ভর পণ্য বিশেষ করে ভোজ্যতেলের কোনো সমন্বয় (অ্যাডজাস্টমেন্ট) করব না। আমি আশা করছি যে উৎপাদক ও আমদানিকারক যারা আছেন তারা ঈদ পর্যন্ত নতুন কোনো দাম নির্ধারণ করবেন না। পুরোনো মূল্যেই তারা সরবরাহ করতে পারবেন। ডলারের দাম বাড়লেও ভোক্তাদের সুবিধার্তে পণ্যের দাম একই পর্যায় রাখবো।

মঙ্গলবার (২১ মে) সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী।

ডলারের দাম বাড়লে আমদানিনির্ভর পণ্যের দামও বাড়বে, এতে ভোক্তাদের ওপর চাপ বাড়বে কি না- সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে টিটু বলেন, আমি নিশ্চিত করে বলতে চাই যে ডলারের সমন্বয় ১০ টাকা থেকে ১৭ টাকা। ভোক্তা পর্যায়ে কোন প্রভাব পড়বে না।

কেন পড়বে না- সেই ব্যাখ্যা দিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কারণ আমদানিকারকরা তখনই অভিযোগ করছিলেন যে ব্যাংক থেকে তারা সরকারি নির্দিষ্ট রেটে ডলার পাচ্ছিলেন না, তারা তখনই ১২০ টাকা, ১২২ টাকা, একেকজন একেকভাবে প্রাইভেটলি সেটলড (নিষ্পত্তি) করছিলেন।

তিনি বলেন, সরকারের সমন্বয়ের কারণে এখন তারা সরকারি হারে আমদানি করতে পারছেন। তাই আমদানিনির্ভর পণ্য বিশেষ করে ভোজ্য তেলের ক্ষেত্রে আমরা কোনো সমন্বয় করব না।

তিনি আরও বলেন, আগে যে দাম নির্ধারণ করা হয়েছিল, ঈদ পর্যন্ত নতুন কোনো দাম নির্ধারণ করা হবে না। তারা পুরোনো দামে সরবরাহ করতে পারে।

তাহলে ঈদের পরে ক্রেতাদের জন্য দুঃসংবাদ অপেক্ষা করছে? সাংবাদিকরা এমন প্রশ্ন করলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটা একটা আন্তর্জাতিক পণ্য। কোথায় যুদ্ধ হবে, অর্থনীতির কোথায় কী হবে, সেটা নিয়ে আগাম ধারণা করা যাবে না। তবে এই মুহূর্তে নতুন করে মূল্যা নির্ধারণের প্রয়োজনীয়তা আছে বলে আমি মনে করি না। যদি আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যের দাম বেড়ে যায়, তাহলে তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা চিন্তা করবো।

ডলারের দাম বাড়লেও কোরবানির ঈদের আগে ভোজ্যতেলের দাম বাড়বে না

আপডেট সময় : ০৪:৩০:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

ডলারের দাম বাড়লেও আসন্ন ঈদুল আজহার আগে দেশের বাজারে ভোজ্যতেলের দাম সমন্বয় করা হবে না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসমল টিটু।

তিনি বলেন, আমদানিনির্ভর পণ্য বিশেষ করে ভোজ্যতেলের কোনো সমন্বয় (অ্যাডজাস্টমেন্ট) করব না। আমি আশা করছি যে উৎপাদক ও আমদানিকারক যারা আছেন তারা ঈদ পর্যন্ত নতুন কোনো দাম নির্ধারণ করবেন না। পুরোনো মূল্যেই তারা সরবরাহ করতে পারবেন। ডলারের দাম বাড়লেও ভোক্তাদের সুবিধার্তে পণ্যের দাম একই পর্যায় রাখবো।

মঙ্গলবার (২১ মে) সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী।

ডলারের দাম বাড়লে আমদানিনির্ভর পণ্যের দামও বাড়বে, এতে ভোক্তাদের ওপর চাপ বাড়বে কি না- সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে টিটু বলেন, আমি নিশ্চিত করে বলতে চাই যে ডলারের সমন্বয় ১০ টাকা থেকে ১৭ টাকা। ভোক্তা পর্যায়ে কোন প্রভাব পড়বে না।

কেন পড়বে না- সেই ব্যাখ্যা দিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কারণ আমদানিকারকরা তখনই অভিযোগ করছিলেন যে ব্যাংক থেকে তারা সরকারি নির্দিষ্ট রেটে ডলার পাচ্ছিলেন না, তারা তখনই ১২০ টাকা, ১২২ টাকা, একেকজন একেকভাবে প্রাইভেটলি সেটলড (নিষ্পত্তি) করছিলেন।

তিনি বলেন, সরকারের সমন্বয়ের কারণে এখন তারা সরকারি হারে আমদানি করতে পারছেন। তাই আমদানিনির্ভর পণ্য বিশেষ করে ভোজ্য তেলের ক্ষেত্রে আমরা কোনো সমন্বয় করব না।

তিনি আরও বলেন, আগে যে দাম নির্ধারণ করা হয়েছিল, ঈদ পর্যন্ত নতুন কোনো দাম নির্ধারণ করা হবে না। তারা পুরোনো দামে সরবরাহ করতে পারে।

তাহলে ঈদের পরে ক্রেতাদের জন্য দুঃসংবাদ অপেক্ষা করছে? সাংবাদিকরা এমন প্রশ্ন করলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটা একটা আন্তর্জাতিক পণ্য। কোথায় যুদ্ধ হবে, অর্থনীতির কোথায় কী হবে, সেটা নিয়ে আগাম ধারণা করা যাবে না। তবে এই মুহূর্তে নতুন করে মূল্যা নির্ধারণের প্রয়োজনীয়তা আছে বলে আমি মনে করি না। যদি আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যের দাম বেড়ে যায়, তাহলে তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা চিন্তা করবো।