ঢাকা ১১:০৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

উগান্ডার বিপক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের রেকর্ড জয়

স্পোটর্স ডেস্ক:
  • আপডেট সময় : ০২:২০:৩৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ জুন ২০২৪ ২৩ বার পঠিত

প্রথম ইনিংসের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের রানই যথেষ্ট বলে মনে হয়েছিল। উগান্ডার ব্যাটিংয়ের পর সেটি তো প্রমাণিত হয়েছেই, বরং বড় জয়ে নেট রান রেটে এগিয়ে থাকার স্বস্তি পেয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সঙ্গে তারা গড়েছে অনেকগুলো রেকর্ডও।

রবিবার প্রোভিডেন্সে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ সি ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৩৪ রানে জিতেছে। শুরুতে ব্যাট করে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭৩ রান করে স্বাগতিকরা। ওই রান তাড়া করতে গিয়ে ১২ ওভারে স্রেফ ৩৯ রানে অলআউট হয়ে গেছে উগান্ডা।

এটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যৌথভাবে সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ। এর আগে ২০১৪ বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডস শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সমান রানে গুটিয়ে গিয়েছিল। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে রানের দিক থেকে এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম জয়। প্রথমে ২০০৭ সালে কেনিয়ার বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার ১৭২ রানের জয়।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৪১ রান। দলের পক্ষে ৮ বলে ১৩ রান করা ব্রেন্ডন কিংকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন রমজানি। পাওয়ার প্লেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ছয় ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ৫৪ রান করে।

তিন নম্বরে খেলতে নামা নিকোলাস পুরান ফেরেন ব্রায়ান মাসাবার বলে তার হাতেই ক্যাচ দিয়ে। কোনো ব্যাটারই ব্যক্তিগত সংগ্রহ বড় করতে না পারলেও ছোট ছোট জুটিতে এগিয়ে যেতে থাকে ক্যারিবীয়রা। দলটির পক্ষে সর্বোচ্চ রান আসে ওপেনার জনাথন চার্লসের ব্যাটে।

রান তাড়ায় নেমে একদমই সুবিধা করতে পারেনি উগান্ডা। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে আসা দলটির একজন ব্যাটারই দুই অঙ্কের ঘরে নিয়ে যেতে পেরেছেন ব্যক্তিগত সংগ্রহ। আগের ম্যাচেই পাপুয়া নিউগিনিকে হারানো দলটি শীর্ষস্তরের ক্রিকেটের নির্মম বাস্তবতাই বুঝতে পারে যেন।

উগান্ডার বিপক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের রেকর্ড জয়

আপডেট সময় : ০২:২০:৩৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ জুন ২০২৪

প্রথম ইনিংসের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের রানই যথেষ্ট বলে মনে হয়েছিল। উগান্ডার ব্যাটিংয়ের পর সেটি তো প্রমাণিত হয়েছেই, বরং বড় জয়ে নেট রান রেটে এগিয়ে থাকার স্বস্তি পেয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সঙ্গে তারা গড়েছে অনেকগুলো রেকর্ডও।

রবিবার প্রোভিডেন্সে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ সি ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৩৪ রানে জিতেছে। শুরুতে ব্যাট করে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭৩ রান করে স্বাগতিকরা। ওই রান তাড়া করতে গিয়ে ১২ ওভারে স্রেফ ৩৯ রানে অলআউট হয়ে গেছে উগান্ডা।

এটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যৌথভাবে সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ। এর আগে ২০১৪ বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডস শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সমান রানে গুটিয়ে গিয়েছিল। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে রানের দিক থেকে এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম জয়। প্রথমে ২০০৭ সালে কেনিয়ার বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার ১৭২ রানের জয়।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৪১ রান। দলের পক্ষে ৮ বলে ১৩ রান করা ব্রেন্ডন কিংকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন রমজানি। পাওয়ার প্লেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ছয় ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ৫৪ রান করে।

তিন নম্বরে খেলতে নামা নিকোলাস পুরান ফেরেন ব্রায়ান মাসাবার বলে তার হাতেই ক্যাচ দিয়ে। কোনো ব্যাটারই ব্যক্তিগত সংগ্রহ বড় করতে না পারলেও ছোট ছোট জুটিতে এগিয়ে যেতে থাকে ক্যারিবীয়রা। দলটির পক্ষে সর্বোচ্চ রান আসে ওপেনার জনাথন চার্লসের ব্যাটে।

রান তাড়ায় নেমে একদমই সুবিধা করতে পারেনি উগান্ডা। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে আসা দলটির একজন ব্যাটারই দুই অঙ্কের ঘরে নিয়ে যেতে পেরেছেন ব্যক্তিগত সংগ্রহ। আগের ম্যাচেই পাপুয়া নিউগিনিকে হারানো দলটি শীর্ষস্তরের ক্রিকেটের নির্মম বাস্তবতাই বুঝতে পারে যেন।