ঢাকা ০৫:৩৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদের খাদ্য উপহার পেলো মোংলা বন্দরের শ্রমিকরা

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৪:৩৭:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ এপ্রিল ২০২৩ ৮ বার পঠিত

মোংলা প্রতিনিধি:
পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষ্যে মোংলা বন্দরে জাহাজে কর্মরত অস্থায়ী শ্রমিক-কর্মচারীদের খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ, মোংলা কাষ্টমস এজেন্টস এ্যাসোসিয়েশন ও মোংলা বন্দর বার্থ ও শিপ অপারেটর এ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে আজ দুপুরে বন্দরের শ্রমিক কর্মচারী সংঘের তিন হাজার ৮০০ শ্রমিকদের হাতে এ খাদ্য সামগ্রী তুলে দেয়। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল চাল, তেল, সেমাই, চিনি, লবন, সাবান ও দুধ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মীর এরশাদ আলী, মোংলা বন্দর বার্থ ও শিপ অপারেটর এসোসিয়েশনের সভাপতি সৈয়দ জাহিদ হোসেন ও মোংলা কাষ্টমস এজেন্টস এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো: সুলতান হোসাইন খান, বন্দর ব্যবহারকারী ব্যবসায়ী এস এম মোস্তাক হোসেন মিঠু, এইচ এম দুলাল, মোস্তফা জেসান ভূট্রো, শেখ কামরুজ্জামান জসিম, মশিউর রহমান ও মাহাবুবুর রহমান টুটুল।
বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মীর এরশাদ আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের দিক নির্দেশনার ফলে মোংলা বন্দরে এখন স্বর্ণ যুগ চলছে। পদ্মা সেতু চালু হওয়াতে চট্টগ্রামের তুলনায় মোংলা বন্দরে থেকে ঢাকার দুরত্ব ১০০ কিলোমিটার কমে গেছে। বন্দরের শ্রমিক কর্মচারীই এই বন্দরের বড় শক্তি। তাই সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে মোংলা বন্দরকে আরও এগিয়ে নিতে হবে।

ঈদের খাদ্য উপহার পেলো মোংলা বন্দরের শ্রমিকরা

আপডেট সময় : ০৪:৩৭:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ এপ্রিল ২০২৩

মোংলা প্রতিনিধি:
পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষ্যে মোংলা বন্দরে জাহাজে কর্মরত অস্থায়ী শ্রমিক-কর্মচারীদের খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ, মোংলা কাষ্টমস এজেন্টস এ্যাসোসিয়েশন ও মোংলা বন্দর বার্থ ও শিপ অপারেটর এ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে আজ দুপুরে বন্দরের শ্রমিক কর্মচারী সংঘের তিন হাজার ৮০০ শ্রমিকদের হাতে এ খাদ্য সামগ্রী তুলে দেয়। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল চাল, তেল, সেমাই, চিনি, লবন, সাবান ও দুধ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মীর এরশাদ আলী, মোংলা বন্দর বার্থ ও শিপ অপারেটর এসোসিয়েশনের সভাপতি সৈয়দ জাহিদ হোসেন ও মোংলা কাষ্টমস এজেন্টস এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো: সুলতান হোসাইন খান, বন্দর ব্যবহারকারী ব্যবসায়ী এস এম মোস্তাক হোসেন মিঠু, এইচ এম দুলাল, মোস্তফা জেসান ভূট্রো, শেখ কামরুজ্জামান জসিম, মশিউর রহমান ও মাহাবুবুর রহমান টুটুল।
বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মীর এরশাদ আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের দিক নির্দেশনার ফলে মোংলা বন্দরে এখন স্বর্ণ যুগ চলছে। পদ্মা সেতু চালু হওয়াতে চট্টগ্রামের তুলনায় মোংলা বন্দরে থেকে ঢাকার দুরত্ব ১০০ কিলোমিটার কমে গেছে। বন্দরের শ্রমিক কর্মচারীই এই বন্দরের বড় শক্তি। তাই সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে মোংলা বন্দরকে আরও এগিয়ে নিতে হবে।