ঢাকা ১১:০১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অল্পের জন্যে রক্ষা পেল ৩ রোহিঙ্গা ক্যাম্প 

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৮:৫১:৩৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ এপ্রিল ২০২৪ ৪৬ বার পঠিত
কক্সবাজার প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে। বড় ধরনের অগ্নিকাণ্ড থেকে রক্ষা পেয়েছে তিন রোহিঙ্গা ক্যাম্প। শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১ টার দিকে কুতুপালং ২ ওয়েস্ট রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একটি দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে জানা গেছে । অগ্নিদুর্গত এলাকাটি পার্শ্ববর্তী ৩ ও ৬ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সাথে ২ ওয়েস্টের সংযোগস্থলে, যার আশেপাশে প্রায় ১৫ হাজার রোহিঙ্গা বসতি।
দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়বে এমন আতঙ্কের মাঝে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিতে তাৎক্ষণিক তৎপরতা শুরু করে ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডে জরুরি সাড়াদানে নিয়োজিত স্বেচ্ছাসেবক দলসহ সেখানকার বাসিন্দারা। আগুন ছড়িয়ে পড়ার আগে জ্বলন্ত দোকানের আশেপাশে থাকা ১৫ থেকে ২০টির মতো ঘর সরিয়ে ফেলা হয়, এই কৌশলের কারণে কমে আসে আগুনের তীব্রতা। মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে আগুন  নিয়ন্ত্রণে আনা যায়, তবে পুড়ে গেছে ২টি দোকান ও ২টি বসতঘর।
২ ওয়েস্ট ক্যাম্পের বাসিন্দা রোহিঙ্গা যুবক মোহাম্মদ শফিক জানান, আগুনের তীব্রতা দেখে মনে হচ্ছিলো দ্রুত তিন ক্যাম্পে ছড়িয়ে যাবে। আল্লাহর রহমতে আমরা ও স্বেচ্ছাসেবক ভাইয়েরা মিলে আগুন থামাতে পেরেছি। পাশের ঘরগুলো না ভাঙ্গলে বেশি ক্ষতি হতো।
২ ওয়েস্ট রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুইদিন আগে খুন হয় এক কমিউনিটি নেতা (মাঝি)। এ ঘটনার জের ধরে দুর্বৃত্তরা অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা সেখানকার বাসিন্দাদের।
উখিয়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর স্টেশন অফিসার শফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা অগ্নিকাণ্ডের খবর পাই, তবে ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগে তা নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।

অল্পের জন্যে রক্ষা পেল ৩ রোহিঙ্গা ক্যাম্প 

আপডেট সময় : ০৮:৫১:৩৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ এপ্রিল ২০২৪
কক্সবাজার প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে। বড় ধরনের অগ্নিকাণ্ড থেকে রক্ষা পেয়েছে তিন রোহিঙ্গা ক্যাম্প। শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১ টার দিকে কুতুপালং ২ ওয়েস্ট রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একটি দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে জানা গেছে । অগ্নিদুর্গত এলাকাটি পার্শ্ববর্তী ৩ ও ৬ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সাথে ২ ওয়েস্টের সংযোগস্থলে, যার আশেপাশে প্রায় ১৫ হাজার রোহিঙ্গা বসতি।
দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়বে এমন আতঙ্কের মাঝে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিতে তাৎক্ষণিক তৎপরতা শুরু করে ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডে জরুরি সাড়াদানে নিয়োজিত স্বেচ্ছাসেবক দলসহ সেখানকার বাসিন্দারা। আগুন ছড়িয়ে পড়ার আগে জ্বলন্ত দোকানের আশেপাশে থাকা ১৫ থেকে ২০টির মতো ঘর সরিয়ে ফেলা হয়, এই কৌশলের কারণে কমে আসে আগুনের তীব্রতা। মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে আগুন  নিয়ন্ত্রণে আনা যায়, তবে পুড়ে গেছে ২টি দোকান ও ২টি বসতঘর।
২ ওয়েস্ট ক্যাম্পের বাসিন্দা রোহিঙ্গা যুবক মোহাম্মদ শফিক জানান, আগুনের তীব্রতা দেখে মনে হচ্ছিলো দ্রুত তিন ক্যাম্পে ছড়িয়ে যাবে। আল্লাহর রহমতে আমরা ও স্বেচ্ছাসেবক ভাইয়েরা মিলে আগুন থামাতে পেরেছি। পাশের ঘরগুলো না ভাঙ্গলে বেশি ক্ষতি হতো।
২ ওয়েস্ট রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুইদিন আগে খুন হয় এক কমিউনিটি নেতা (মাঝি)। এ ঘটনার জের ধরে দুর্বৃত্তরা অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা সেখানকার বাসিন্দাদের।
উখিয়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর স্টেশন অফিসার শফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা অগ্নিকাণ্ডের খবর পাই, তবে ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগে তা নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।