ঢাকা ০২:১২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অজানা গন্তব্যে জিম্মি জাহাজ আব্দুল্লাহ, প্রকাশ্যে ৪ জলদস্যুর ছবি

বাংলাদেশ কণ্ঠ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০১:৩৪:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ মার্চ ২০২৪ ২০ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি :

জিম্মি হওয়া বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ-তে অবস্থানকৃত ৪ সোমালি জলদস্যুদের ছবি প্রকাশ করেছে ভারতীয় নৌবাহিনী। শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে ভারতীয় নৌবাহিনীর মুখপাত্রের এক্স (সাবেক টুইটার) অ্যাকাউন্ট থেকে ছবিটি প্রকাশ করা হয়। জাহাজের উপরের অংশে থাকা টহলরত জলদস্যুদের চিহ্নিত করা হয়েছে সেই ছবিটিতে।

এক্স-এর পোস্ট অনুসারে, সোমালি জলদস্যুদের হাতে জিম্মি হওয়া বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে সহায়তা করার জন্য একটি ভারতীয় যুদ্ধজাহাজ এবং একটি দূরপাল্লার সামুদ্রিক টহল বিমান আশেপাশে অবস্থান করছে।

পোস্ট অনুসারে, সোমালি জলদস্যুদের হাতে জিম্মি হওয়া বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে সহায়তা করার জন্য একটি ভারতীয় যুদ্ধজাহাজ এবং একটি দূরপাল্লার সামুদ্রিক টহল বিমান আশেপাশে অবস্থান করছে।

ভারতীয় নৌবাহিনী শুক্রবার এক বিবৃতিতে বলেছে যে এমভি আবদুল্লাহর ছিনতাইয়ের তথ্য পাওয়ার পর মঙ্গলবার (১২ মার্চ) ভারতীয় নৌবাহিনী লং রেঞ্জ মেরিটাইম পেট্রোল এয়ারক্রাফ্ট এলআরএমপি পি-৮১ মোতায়েন করেছে।

পরে ভারতীয় নৌবাহিনী একটি যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করে। বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) যুদ্ধজাহাজটি জিম্মি জাহাজটির ওপর নজরদারি শুরু করে। ওই দিন সকালে ভারতীয় যুদ্ধজাহাজ সফলভাবে বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে আটকে দেয়।

পরবর্তীতে, হাইজ্যাক করা ক্রু সদস্যদের (বাংলাদেশি নাগরিক) নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য যুদ্ধজাহাজটি সোমালিয়ার আঞ্চলিক জলসীমায় পৌঁছানো পর্যন্ত এমভি আবদুল্লাহর কাছাকাছি অবস্থানে থাকে।

এদিকে, ইইউ নৌবাহিনীও অপারেশন আটলান্টার অধীনে জিম্মি বাংলাদেশি জাহাজটিকে অনুসরণ করছে। শুক্রবার সকালে, ইইউ নৌবাহিনী জানিয়েছে যে তারা সংগ্রহ করা ভিজ্যুয়াল তথ্যে দেখা গেছে যে কমপক্ষে ১২ জন জলদস্যু বর্তমানে জাহাজটিতে ছিল।

৪ মার্চ, বাংলাদেশের এসআর শিপিংয়ের ১৩ মিটার গভীর নৌযান এমভি আবদুল্লাহ কয়লা নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশ্যে মোজাম্বিকের মাপুতো বন্দর ত্যাগ করে। পরে মঙ্গলবার (১২ মার্চ) দুপুর দেড়টার দিকে ভারত মহাসাগরে জাহাজটি ছিনতাইয়ের খবর আসে। জাহাজের ২৩ নাবিককে স্পিডবোটে সোমালিয়া উপকূলে নিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন একজন।

অজানা গন্তব্যে জিম্মি জাহাজ আব্দুল্লাহ, প্রকাশ্যে ৪ জলদস্যুর ছবি

আপডেট সময় : ০১:৩৪:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ মার্চ ২০২৪

নিজস্ব প্রতিনিধি :

জিম্মি হওয়া বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ-তে অবস্থানকৃত ৪ সোমালি জলদস্যুদের ছবি প্রকাশ করেছে ভারতীয় নৌবাহিনী। শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে ভারতীয় নৌবাহিনীর মুখপাত্রের এক্স (সাবেক টুইটার) অ্যাকাউন্ট থেকে ছবিটি প্রকাশ করা হয়। জাহাজের উপরের অংশে থাকা টহলরত জলদস্যুদের চিহ্নিত করা হয়েছে সেই ছবিটিতে।

এক্স-এর পোস্ট অনুসারে, সোমালি জলদস্যুদের হাতে জিম্মি হওয়া বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে সহায়তা করার জন্য একটি ভারতীয় যুদ্ধজাহাজ এবং একটি দূরপাল্লার সামুদ্রিক টহল বিমান আশেপাশে অবস্থান করছে।

পোস্ট অনুসারে, সোমালি জলদস্যুদের হাতে জিম্মি হওয়া বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে সহায়তা করার জন্য একটি ভারতীয় যুদ্ধজাহাজ এবং একটি দূরপাল্লার সামুদ্রিক টহল বিমান আশেপাশে অবস্থান করছে।

ভারতীয় নৌবাহিনী শুক্রবার এক বিবৃতিতে বলেছে যে এমভি আবদুল্লাহর ছিনতাইয়ের তথ্য পাওয়ার পর মঙ্গলবার (১২ মার্চ) ভারতীয় নৌবাহিনী লং রেঞ্জ মেরিটাইম পেট্রোল এয়ারক্রাফ্ট এলআরএমপি পি-৮১ মোতায়েন করেছে।

পরে ভারতীয় নৌবাহিনী একটি যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করে। বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) যুদ্ধজাহাজটি জিম্মি জাহাজটির ওপর নজরদারি শুরু করে। ওই দিন সকালে ভারতীয় যুদ্ধজাহাজ সফলভাবে বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহকে আটকে দেয়।

পরবর্তীতে, হাইজ্যাক করা ক্রু সদস্যদের (বাংলাদেশি নাগরিক) নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য যুদ্ধজাহাজটি সোমালিয়ার আঞ্চলিক জলসীমায় পৌঁছানো পর্যন্ত এমভি আবদুল্লাহর কাছাকাছি অবস্থানে থাকে।

এদিকে, ইইউ নৌবাহিনীও অপারেশন আটলান্টার অধীনে জিম্মি বাংলাদেশি জাহাজটিকে অনুসরণ করছে। শুক্রবার সকালে, ইইউ নৌবাহিনী জানিয়েছে যে তারা সংগ্রহ করা ভিজ্যুয়াল তথ্যে দেখা গেছে যে কমপক্ষে ১২ জন জলদস্যু বর্তমানে জাহাজটিতে ছিল।

৪ মার্চ, বাংলাদেশের এসআর শিপিংয়ের ১৩ মিটার গভীর নৌযান এমভি আবদুল্লাহ কয়লা নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশ্যে মোজাম্বিকের মাপুতো বন্দর ত্যাগ করে। পরে মঙ্গলবার (১২ মার্চ) দুপুর দেড়টার দিকে ভারত মহাসাগরে জাহাজটি ছিনতাইয়ের খবর আসে। জাহাজের ২৩ নাবিককে স্পিডবোটে সোমালিয়া উপকূলে নিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন একজন।